Skip to content Skip to sidebar Skip to footer

Before Post

যে ৫টি বিষয় নিয়ে কাজ করলে ইউটিউবে সফল হতে পারবেন

বর্তমানে নিঃসন্দেহে সবথেকে বেশি ব্যবহৃত ভিডিও শেয়ারিং সোশ্যাল নেটওয়ার্কস হলো ইউটিউব। দিনদিন ইউটিউব এর জনপ্রিয়তা যেন বাড়ছে আর বাড়ছে, বিশেষ করে বাংলাদেশ এটি একটি বৃহৎ প্ল্যাটফর্ম। আর সব থেকে বড় কথা এখনো ইউটিউবের বিকল্প কোন ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম মার্কেটপ্লেসে তেমনভাবে আসতে পারেনি।

ইউটিউবে সফল হওয়ার ৫টি বিষয়

সেই সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ইউটিউব চ্যানেলের পরিমাণ। বিনোদনের পাশাপাশি আজকাল কিছু হলেই বা কিছু জানার থাকলে প্রথমে আমরা ইউটিউবে সার্চ করি। মনের ভিতর অনেকেই ইউটিউবিং করে বা ইউটিউব কনটেন্ট ক্রিয়েটর। এমনকি বর্তমানে যে অবস্থা সেটা থেকে সহজেই বোঝা যায় যে কেউ ইউটিউব কে তার ক্যারিয়ার হিসেবে ধরে নিতে পারে। আমাদের আশেপাশে আমরা ইউটিউবিং করার মত অনেক বিষয় দেখে থাকি। কিন্তু আজকে আমরা ৫টি বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো যেগুলো নিয়ে ইউটিউবিং করলে খুব সহজেই সফল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

রিয়েকশন

ইউটিউবে সবথেকে কম সময়ে এবং সহজে কোন সফল হওয়ার ক্ষেত্রে যে বিষয়টি নিয়ে কাজ করা যায় সেটি হল রিয়েকশন। বিশ্বাস করেন রিয়েকশন চ্যানেল এর মত এতো সহজে কোন চ্যানেল বড় করা যায় না। মূলত ইউটিউবে খুব সহজে আপনি একটি রিএকশন চ্যানেল দাঁড় করাতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনার প্রফেশনাল মানের ক্যামেরা, লাইট, সাউন্ড এবং রুম সেটআপ এসবের কিছুই দরকার নেই। আপনার হাতে থাকা মোবাইল দিয়েই আপনি কনটেন্ট বানাতে পারবেন। মোবাইলেই আবার ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন। তাই দেখুন: মোবাইলের জন্য ৫টি সেরা ভিডিও এডিটিং অ্যাপ। রিয়েকশন চ্যানেলের মাধ্যমে সফল হওয়ার মূল বিষয়টি হলো আপনার ভাষাগত দক্ষতা ও সাবলীল উপস্থাপনা। এক্ষেত্রে আপনি ভাইরাল টপিক নিয়ে কাজ করলে আরো দ্রুত সাবসক্রাইব বাড়াতে পারবেন কারণ এতে সার্চ ভলিউম বেশি থাকবে। গান, ক্লিপ বা যেকোনো কনটেন্টের উপর আপনি রিয়েকশন দিতে পারেন।

মেকআপ টিউটোরিয়াল

আপনি যদি মেয়ে হয়ে থাকুন তাহলে আপনার ক্ষেত্রে এই বিষয়টার প্রায়োরিটি থাকবে। ফেসবুকে বেশির ভাগ মেয়েরা বিনোদনের পরই ইউটিউবে তাদের সৌন্দর্য সংক্রান্ত কনটেন্ট দেখে। তাই বলা যায় আপনি মেকআপ টিউটোরিয়ালে ভালো সার্চ ভলিউম পাবেন। এই ধরনের কনটেন্ট বানানো অনেকটাই সোজা। এক্ষেত্রে আপনি আপনার হাতে থাকা স্মার্টফোনটি দিয়েই শুরু করতে পারেন। দেখুন: ১০ হাজার টাকার মধ্যে সেরা ৫টি স্মার্টফোন ২০২০

ভালো হয় আপনি যদি একটি রিং লাইট ও ক্লিপ মাইক্রোফোন কিনতে পারেন। আপনি যদি ভালো ভাবে মেকআপ টিউটোরিয়ালের পাশাপাশি মেহেদী ডিজাইন, হিজাব টিউটোরিয়াল এবং বিউটি টিপস নিয়েও কাজ করতে পারেন।

রিভিউ

আপনি কি মুভি দেখতে ভালোবাসেন? আপনি কি বই পড়তে ভালোবাসেন? বাজারে আসা নতুন নতুন মোবাইল সম্পর্কে ভালো জানেন?

তাহলে আপনি খুব সহজেই কাজ করতে পারেন রিভিউ নিয়ে! বর্তমানে আমরা কোনো ফোন কেনার আগে ইউটিউবে সার্চ করি সেটার রিভিউ জানতে বা ইউজার এক্সপেরিয়েন্স জানতে। তাই মোবাইল রিভিউ নিয়েও সার্চ ভলিউম অনেক বেশি থাকায় সফল হওয়া সম্ভব। এছাড়া মোবাইল রিভিউ নিয়ে কাজ করলে স্পন্সরশিপের অভাব হয় না। শুরুতে ছোট ছোট অনলাইন মোবাইল বিক্রয়ের প্ল্যাটফর্ম আপনাকে স্পন্সর করবে আর ভালো জায়গায় যেতে পারলে সরাসরি কোম্পানি থেকেও স্পন্সর!

মোবাইল রিভিউ এর মতো বই রিভিউ ও মুভি রিভিউ করেও সফল হতে পারবেন। এজন্য আপনি আলোচিত বই আর সুপারহিট মুভির রিভিউ করতে পারেন। আতিক ভাই নামের এক ইউটিউবার খুবই মজার সাথে বুক রিভিউ করে অনেক জনপ্রিয় হচ্ছেন।

কিভাবে (How to)

ইউটিউবে সবথেকে বেশি পরিমাণ সার্চ করা হয় How to কীওয়ার্ড নিয়ে। এক্ষেত্রে টাইটেল হয় অনেকটা এরকম "How to fix breadcrumb issue in Blogger"

এই টপিকের বিষয়ই মনে হয় হাজার হাজার! আপনি যদি কিছু বানানোর টিউটোরিয়াল (DLY) দিতে পারেন তাহলে সবথেকে ভালো। যেমন: কিভাবে পুরাতন বোতল দিয়ে ফুল বানাবেন? (How to make beautiful flower from useless bottle?)

আপনি যদি টেকনোলজি নিয়ে কাজ করেন তাহলে এর ক্ষেত্র আরও অনেক। যেমন: How to Facebook ruined your life?

এ ধরনের ভিডিও আপনি আপনার মোবাইলের মাধ্যমেই বানাতে পারবেন। আলাদা করে স্টুডিও সেটাপের খরচ লাগছে না।

ফুড/ট্রাভেল ভ্লগিং

ইউটিউবে বেশির ভাগ ভিডিও কিন্তু ট্রাভেল নিয়ে! ইউটিউবের প্রথম ভিডিও কিন্তু একটা চিড়িয়াখানায় সেটাও ট্রাভেলের সাথে সংযুক্ত। তবে ট্রাভেল ভ্লগিং করতে একটা খরচের বিষয় আছে। এজন্য আপনার একটি টিম লাগবে, ভালো ক্যামেরা, মাইক্রোফোন ইত্যাদি লাগবে। কোনো প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জায়গায় ট্রাভেল ভ্লগিং করতে ড্রোন শট না হলে এই যুগে অসম্পূর্ণ থেকে যায়। এজন্য বলা হয় ট্রাভেল ভ্লগিং করে সহজেই সাবসক্রাইব বাড়ানো যায় কিন্তু খরচের একটা বিষয় আছে।

ভোজন রসিক বাঙালিরা সব সময়ই ভালো স্বাদের খাবারের পূজারী। ফুড ভ্লগিং বিষয়টা বাংলাদেশে বেশ পুরোনো না। রাফসান ছোট ভাই, পেটুক কাপল, খিদা লাগছে এই ধরনের চ্যানেলগুলো খুব দ্রুতই দাড়িয়ে গেছে। ফুড ভ্লগিং বিষয়টা হলো আপনি খাবারের রিভিউ করবেন বা রেস্টুরেন্ট রিভিউ করবেন। এক্ষেত্রে আপনি যত প্রানব্রন্ত্র ও সাবলীল উপস্থাপন করবেন মানুষ ততোই ভালোভাবে গ্রহন করবে।

তো এই ছিলো আমাদের আজকের আর্টিকেল: ইউটিউবে সফল হতে যে ৫টি বিষয় নিয়ে কাজ করবেন। আর্টিকেল সম্পর্কে কোনো প্রকার মতামত থাকলে কমেন্ট করুন। আর বন্ধুদের সাথে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন আর অবশ্যই আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিন আর ইউটিউব চ্যানেলে সাবসক্রাইব করুন।

ট্যাগ: ইউটিউব, ইউটিউবের সফল, ইউটিউবের ৫টি বিষয়, ইউটিউবে সফল হতে করণীয়, ইউটিউবে সফল ২০২১, ইউটিউবে কোন বিষয় নিয়ে কাজ করবো